২০২২ বিশ্বকাপকে সামনে রেখে বাফুফের মহাপরিকল্পনা

40

রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে করুণ পরিণতি আর ভুটানের কাছে লজ্জ্বাজনক হারে দেশের ফুটবল হিমাগার থেকে বের হয়ে এশিয়ান গেমসে সাফল্য পেলো। এরই মধ্যে দেশের মাটিতে জায়ান্ট দুই টুর্নামেন্ট সাফ ও বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ ব্যর্থতার পর আবারও বাফুফের কপালে চিন্তার ভাঁজ। বেশ কয়েকবার গোলটেবিল বৈঠক হয়েছে ফুটবল নিয়ে কী করা যায়। এবার মহাপরিকল্পনা হাতে নিতে চলেছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন।
২০২২ বিশ^কাপকে সামনে রেখে মহাপরিকল্পনা নিতে চায় বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। নতুন বছরে অন্তত ১০টি প্রীতি ম্যাচ খেলতে চায় ফেডারেশন। ভারত, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, মিয়ানমার, মালয়েশিয়ার মতো দেশগুলোর সঙ্গে প্রস্তুতি ম্যাচ খেলতে উদ্যোগ নিচ্ছে দেশের ফুটবলের সর্বোচ্চ অভিভাবক।
বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাঈম সোহাগ জানান, ‘জাতীয় দল নিয়ে আমরা কাজ করছি। ক্যালেন্ডারে ফিফার উন্ডোতে আমাদের দুটা ফিফা ম্যাচ থাকবে। ২০২২ সালের বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে খেলবে বাংলাদেশ।’
মার্চে নিয়মিত খেলার প্রসঙ্গে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে আলোচনা করেছে বাফুফে। পাশাপাশি বছরজুড়ে প্রতিবেশিদেশসহ আসিয়ান জোনের দেশগুলোর সাথে খেলতে চায় বাংলাদেশ। ইন্ডিয়াতেও আমরা যদি একটা-দুটা করে ম্যাচ খেলি তাহলে দেখা যাবে আমাদের ১০ থেকে ১২ ম্যাচ খেলা হবেই। কম্বোডিয়া, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, মিয়ানমার, মালয়েশিয়া তাদের সঙ্গে খেলার চিন্তা করা হচ্ছে।’ ইতোমধ্যে মার্চের পর নিয়মিত ম্যাচ খেলতে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে প্রাথমিক আলোচনা সেড়েছে বলে নিশ্চিত করেন সোহাগ। কাতার বিশ্বকাপকে সামনে রেখে মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতেই আগামী জানুয়ারিতে ঢাকায় ফিরছেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ জেমি ডে ও তার সহকারী কোচ স্টুয়ার্ট হোয়াটকেস। অসুস্থতা কাটিয়ে ফিটনেস ট্রেইনার পল ডেভিসের আসাও নিশ্চিত করেছে ফেডারেশন।