‘সমৃদ্ধ বাংলাদেশ’ ম্যুরাল জেলা পরিষদ চত্বরে

41

নগরীর লালদিঘীর মাঠ থেকে কোতোয়ালী থানা পর্যন্ত ‘সমৃদ্ধ বাংলাদেশ’ ম্যুরাল উদ্বোধন করা হয়েছে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন শুক্রবার দুপুরে জেলা পরিষদ চত্বরে এ ফলক উন্মোচন করেন। এ প্রকল্পে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পোট্রেট, সরকার কর্তৃক গৃহিত বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের মধ্যে পার্বত্য শান্তিচুক্তি, পদ্মা সেতু, ডুব জাহান, উড়াল সেতু, কমিউনিটি ক্লিনিক, বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট, যমুনা সেতু, মেট্রোরেল, কর্ণফুলি টানেল, বুলেট ট্রেন, রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র, রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র, এলএনজি টার্মিনালের চিত্র তুলে ধরা হয়েছে। এর পাশাপাশি গাছ লাগিয়ে পরিবেশবান্ধব মানুষের বসার স্থান করে দিয়ে এলাকার সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করা হয়েছে। পাল্টে গেছে পরিবেশ।
চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের উদ্যোগে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ উপলক্ষে আয়োজিত সমাবেশে সিটি মেয়র বলেন, প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের অপার লীলাভূমি এই চট্টগ্রাম। নগরীকে দৃষ্টিনন্দন করার জন্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন গত ৪ বছর যাবত সবুজে সাজবে চট্টগ্রাম, ডোর টু ডোর বর্জ্য সংগ্রহ, ছাদ বাগান, রাস্তাসমূহে মিড আইল্যান্ড নির্মাণ, গোলচত্বরসমূহকে দৃষ্টিনন্দন ও সৌন্দর্যবর্ধন, এলইডি আলোকায়ন ও রাস্তাঘাট উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করে চলেছে। তিনি বলেন, পূর্বে কোর্ট রোডের এই সড়কটির ফুটপাত ছিল ভবঘুরেদের আড্ডাখানা ও মলমূত্র ত্যাগের স্থান। এই ফুটপাত দিয়ে মানুষ হাটাচলা করতে পারতেন না। চসিক এ ফুটপাতকে জনচলাচলে উপযুক্ত ও সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করার লক্ষে কাজ শুরু করে। যার ফলশ্রূতিতে সমৃদ্ধ বাংলাদেশ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন।
সিটি মেয়র আরো বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বে এখন উন্নয়নের রোল মডেল। ২০২১ সালের মধ্যে মধ্যম আয়ের এবং ২০৪১ সনের মধ্যে উন্নত দেশে পরিণত করতে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ২০৩০ সালের মধ্যে আমাদের এই দেশ হবে দারিদ্রমুক্ত। মেয়র নগরীর এ সৌন্দর্যবর্ধন প্রকল্পকে টেকসই করতে সকলকে দোকান ও গৃহস্থালির আবর্জনা নালা-নর্দমা সহ যত্রতত্র না ফেলে চসিক বর্জ্য সংগ্রহকারী ডোর টু ডোর কর্মীদের হাতে আবর্জনা তুলে দেয়ার জন্য এলাকবাসীর প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন, বর্তমান প্রজন্মকে স্বাধীনতার সঠিক ইতিহাস জানানোর জন্য লালদিঘীর ময়দানে ৬ দফা মঞ্চ তৈরী করা হচ্ছে।
এতে সভাপতিত্ব করেন ৩২নং আন্দরকিল্লা ওয়ার্ড কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী। দিদারুল আলম দিদারের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন রতন আচার্য, মোহাম্মদ মিয়া, মোসলেম উদ্দিন আহমদ, নুরুল আমিন মিয়া, খোরশেদ আলম, শিল্পী শ্রীকান্ত আচার্য, আজম খান, ছাত্রনেতা মোজাম্মেল হক মানিক, ইমরান হোসেন জুয়েল, আবদুল আওয়াল অপু, তৌহিদুল ইসলাম, মো. নওশাদ, শুভ দাশ, হৃদয় চক্রবর্তী। এসময় পটিয়া উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ডা. তিমির বরণ চৌধুরী, যুবলীগ নেতা রায়হান ইউসুফ সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। বিজ্ঞপ্তি