যুব সমাজকে ধ্বংস করতে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে

49

যে পরিবারে একজন মাদকসেবী থাকে সেই পরিবারের দুঃখের সীমা থাকে না উল্লেখ করে সিটি মেয়র আ.জ.ম.নাছির উদ্দীন বলেছেন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের সকলকে আরো অনেক বেশি সচেতন হতে হবে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড এর উদ্যোগে আয়োজিত সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতি বিরোধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। ওয়ার্ড কাউন্সিলর ড.নিছার উদ্দিন আহমেদ মনজুর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে চসিক আইন শৃংখলা স্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান কাউন্সিলর এইচ এম সোহেল, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আফিয়া আকতার, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. এমদাদুল ইসলাম বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন। সভায় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের মধ্যে সোলতান আহমদ চৌধুরী, কাজী আলতাপ হোসেন, মোহাম্মদ লোকমান আলী, মোহাম্মদ ইসলাম চৌধুরী, গিয়াস উদ্দিন জুয়েল, মোহাম্মদ ইকবাল চৌধুরী, হাবিবুর রহমান, সাংবাদিক মো. শফিকুল ইসলাম খান, আবুল কালাম আবু, প্রকৌশলী তরুন তপন দত্ত, মুনমুন চৌধুরী, মিলি চৌধুরী,শফিউল আলম চৌধুরী, আবু সুফিয়ান ও রোকন উদ্দীন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।
সিটি মেয়র বলেন, নগরীতে সন্তাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ও দুর্নীতিমুক্ত করতে জনসম্পৃক্ততা এবং জনসচেতনতার জন্য ওয়ার্ডভিত্তিক কার্যক্রম পরিচালনা করছে সিটি করপোরেশন। ২০১৭ সাল থেকে চলে আসছে এই কর্মসূচি। এই প্রসঙ্গে কমিটিকে আনুষ্ঠানিকতার মধ্যে না রেখে আক্ষরিক অর্থে বাস্তবায়নের পরামর্শ দেন মেয়র। তারই প্রেক্ষিতে পাক্ষিক কিংবা মাসে বৈঠককরণ,এলাকার ক্রমবর্ধন অবস্থা সম্পর্কে আলাপ-আলোচনার ভিত্তিতে আইন শৃংখলা কমিটিকে রিপোর্ট প্রদান। এতে এলাকার মানুষের মধ্যে আশার আলো জাগবে। অপরদিকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও দুর্নীতিবাজদের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি হবে। মাদকাসক্তি বা জঙ্গি মানসিকতা মানুষের সঙ্গে যদি কেউ মেলামেশা করছে বলে জানা যায় তবে তা বন্ধের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে এবং নিজেদের দ্বারা তা সম্ভব না হলে পরিবারের পিতা-মাতা, অভিভাবক, সমাজপতি, কাউন্সিলর এবং সংশ্লিষ্ট সরকারি সংস্থাকে জানানোর আহবান জানান মেয়র। তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে মাদকসেবী ও মাদক বিক্রেতাদের সংখ্যা বেড়ে গিয়েছে। ইতোমধ্যে নগরীর সন্ত্রাসী মাদকাসক্তদের তালিকা পুলিশ প্রশাসনের নিকট প্রদান করা হয়েছে। তবে এই তালিকা শেষ নয় পর্যায়ক্রমে আরো অপরাধীদের তালিকা প্রশাসনের কাছে হন্তান্তর করা হবে। আমাদের উন্নয়নের এ অগ্রগতিকে বাধাগ্রস্ত করতে ষড়যন্ত্রকারীরা উঠে পড়ে লেগেছে। আমাদের যুব সমাজকে ধ্বংস করতে বিভিন্ন ষড়যন্ত্র করছে। কিন্তু যার ভেতরে ন্যূনতম দেশপ্রেম আছে সে কখনোই কোন মাদক ব্যবসায়ী বা ষড়যন্ত্রকারীকে প্রশ্রয় দিতে পারেনা। মেয়র নগরীকে দলমত নিবিশেষে মাদক, জঙ্গি ও সন্ত্রাস ও দুর্নীতিমুক্ত শহরে পরিণত করার ঘোষণা দেন। খবর বিজ্ঞপ্তির