মুমিনুলদের সামনে ইনিংস ব্যবধানে জয়ের হাতছানি

37

নাজমুল হোসেন শান্ত ও নুরুল হাসান সোহানের ফিফটিতে প্রথম ইনিংসে বড় লিড পাওয়া বিসিবি একাদশের সামনে ইনিংস ব্যবধানে জেতার হাতছানি। দ্বিতীয় দিন শেষ বেলায় কেএসসিএ সেক্রেটারি একাদশের প্রথম তিন ব্যাটসম্যানকে ফিরিয়ে দিয়েছে মুমিনুল হকের দল। দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষে সেক্রেটারি একাদশের স্কোর ৩ উইকেটে ১০০। ইনিংস পরাজয় এড়াতে এখনও ১৫৫ রান প্রয়োজন তাদের। অভিনব মনোহর ৩৭ রানে ব্যাট করছেন।
অর্জুনকে বোল্ড করে দশম ওভারে ৪৪ রানের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন ইবাদত হোসেন। পরের ওভারে বিদায় করেন শিভম মিশ্রকে। প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট নেওয়া শহিদুল ইসলাম থামান ৮ চারে ৩৭ রান করা অধিনায়ক রোহান কাদামকে। দিনের বাকি সময়টা কোনো ক্ষতি ছাড়াই কাটিয়ে দেন অভিনব ও নাগা ভারত। এর আগে মঙ্গলবার বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে ৩ উইকেটে ১৩৫ রান নিয়ে দিন শুরু করা বিসিবি একাদশ দ্রæত হারায় জহুরুল ইসলামকে। থিতু হয়েও ইনিংস বড় করতে পারেননি ইয়াসির আলি চৌধুরী। তার সঙ্গে ৫১ রান জুটি গড়া শান্ত খানিক পর রান আউট হয়ে ফিরে যান। ১২৫ বলে খেলা বাঁহাতি এই মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানের ৭২ রানের ইনিংস গড়া ১১ চারে।
আরিফুল হকের দ্রুত বিদায়ের পর ম্যাচে নিজেদের সেরা জুটি পায় বিসিবি একাদশ। সোহানকে দারুণ সঙ্গ দেন সানজামুল ইসলাম। দলকে নিয়ে যান তিনশ রানের কাছে। ৮৭ বলে ১৩ চার ও এক ছক্কায় ৬৮ রান করে সোহানের বিদায়ে ভাঙে ৭৭ রানের জুটি। ৩৩ রান করে ফিরেন সানজামুল। শেষের দিকে বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে দুটি করে ছক্কা ও চারে ২৪ রান করেন শহিদুল। বিসিবি একাদশ থামে ৩৩৪ রানে। প্রথম ইনিংসে সেক্রেটারি একাদশকে ৭৯ রানে থামানো দলটি নেয় ২৫৫ রানের লিড।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
কেএসসিএ সেক্রেটারি একাদশ ১ম ইনিংস: ৭৯
বিসিবি একাদশ ১ম ইনিংস: ১০২.৩ ওভারে ৩৩৪
কেএসসিএ সেক্রেটারি একাদশ ২য় ইনিংস: ২৬ ওভারে ১০০/৩