মিরসরাইয়ে আ. লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

18

মিরসরাইয়ে ধানকাটা নিয়ে বিরোধের জের ধরে সাইফুদ্দিন চৌধুরী রূপম (৪৫) নামের এক আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার ৪ নম্বর ধুম ইউনিয়নের শুক্কুরবারইয়ারহাট এলাকার কাজলের দোকানের সামনে এই ঘটনা ঘটে। বর্তমানে রূপম ঢাকা ট্রমা সেন্টারে চিকিৎসাধীন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। তিনি ধুম ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সদ্য বিলুপ্ত কমিটির যুগ্ম সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন।
রূপমের উপর হামলার প্রতিবাদে ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে গতকাল শুক্রবার বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য এসএম সিরাজ উদ্দিন জানান, রূপমের সাথে দীর্ঘদিন একই বাড়ির বিপ্লবের জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিল। বৃহস্পতিবার বিকেলে নিজের জমি থেকে জোরপূর্বক ধান কাটার বিষয়টি জিজ্ঞেস করলে কিছু বুঝে ওঠার আগেই বিপ্লবের হাতে থাকা দা দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করে রূপমকে। এসময় রূপমের হাতের কবজি কেটে গিয়ে প্রচুর রক্তক্ষরণ হয়। এরপর স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বারইয়ারহাট জেনারেল হাসপাতাল নেওয়া হয়। সেখান থেকে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) ও পরে অবস্থা সংকটাপন্ন হলে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। এরপর সেখান থেকে ঢাকা ট্রমা সেন্টারে শুক্রবার সকালে তার হাতের অপারেশন করা হয়েছে। এই ঘটনায় জোরারগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।
ধুম ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শামসুদ্দীন ভূঁইয়া বলেন, রূপমের উপর হামলার প্রতিবাদে ও দোষীদের শাস্তির দাবিতে শুক্রবার বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ধুম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি জহির উদ্দিন ইরান বলেন, পূর্বশত্রূতার জের ধরে রূপমের উপর হামলা করা হয়েছে। খবর পেয়ে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠিয়েছি। আমি এই ঘটনায় জড়িদের আইনের আওতায় আনার দাবি করছি।
জোরারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মফিজ উদ্দিন ভূঁইয়া বলেন, ধুমে এক ব্যক্তির উপর হামলার বিষয়টি শুনেছি। থানায় অভিযোগ দিলে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।