মাতৃমৃত্যু রোধে প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারি নিশ্চিতের তাগিদ

5

স্বাধীনতার পর দেশে প্রতিদিন গড়ে ৪০ জন মা ও পাঁচশ’ নবজাতকের মৃত্যু হতো। সেখানে বর্তমানে কমে দাঁড়িয়েছে ১৩৬ জনে। যদিও ২০৩০ সালের মধ্যে দেশে মাতৃমৃত্যুর হার ৭০ এর নিচে নামিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্র নির্ধারণ করা হয়েছে। সেই লক্ষ্যমাত্রা পৌঁছাতে হলে প্রাতিষ্ঠানিক ডেলিভারি নিশ্চিত করতে হবে। ২৮ মে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজে (চমেক) নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা এসব কথা বলেন। এসময় বক্তারা বলেন, মাতৃমৃত্যু রোধে প্রধান প্রতিবন্ধকতা হচ্ছে মায়েদের হাসপাতালে আনা। তাদের হাসপাতালে আনতে পারলে মাতৃমৃত্যু সমস্যা বহুলাংশেই সমাধান হয়ে যাবে।
চমেক হাসপাতালের প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিভাগ এবং গাইনি চিকিৎসকদের সংগঠন ওজিএসবি চট্টগ্রাম শাখা যৌথভাবে দিনব্যাপী এ সেমিনারের আয়োজন করেন। চমেক অধ্যক্ষ এবং প্রসূতি ও স্ত্রী রোগ বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও ওজিএসবি চট্টগ্রাম শাখার সহ-সভাপতি অধ্যাপক ডা. সাহেনা আক্তারের সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন ওজিএসবি চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি অধ্যাপক ডা. কামরুন নেসা রুনা। বিশেষ অতিথি ছিলেন চমেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. তসলিম উদ্দীন।
হাসপাতালের প্রসূতি ও স্ত্রী রোগ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. ফাহমিদা ইসলাম চৌধুরীর সঞ্চালনায় সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ডা. জান্নাতুল ফেরদৌস। সভায় উপস্থিত ছিলেন ওজিএসবি চট্টগ্রাম শাখার সাধারণ সম্পাদক ডা. শর্মিলা বড়ুয়াসহ গাইনি চিকিৎসকবৃন্দ। বিজ্ঞপ্তি