ভূমি ও গৃহহীনমুক্ত হওয়ার পথে চট্টগ্রাম

9

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঈদের আগে নতুন ঘরের চাবি পাচ্ছেন ২৩৪ পরিবার। আজ (১১ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমিসহ নতুন ঘর হস্তান্তর করবেন। ঘরগুলো হস্তান্তরের মধ্যদিয়ে চট্টগ্রামকে ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করবেন প্রধানমন্ত্রী। সবমিলিয়ে চট্টগ্রামে পাঁচ ধাপে ছয় হাজার ৫৮৯ পরিবার পাচ্ছে নতুন ঘর। গতকাল সার্কিট হাউজে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এমন তথ্য জানানো হয়েছে।
চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক আবুল বাসার মোহাম্মদ ফখরুজ্জামান বলেন, ‘জাতির পিতার কন্যা হিসেবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে সরকার গঠনের পর ১৯৯৭ সালে আশ্রয়হীনদের পুনর্বাসনের জন্য সরকারি অর্থায়নে প্রথম উদ্যোগ হিসেবে গ্রহণ করেন ‘আশ্রয়ণ প্রকল্প’। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকীতে তাঁরই কন্যা দেশের সকল ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে বাসস্থান নিশ্চিতের ঘোষণা দেন। সরকারি উদ্যোগে দেশের সকল ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ভূমি ও গৃহ প্রদানের এ নজির পৃথিবীর বুকে অনন্য। এত সংখ্যক ভূমিহীন ও গৃহহীন মানুষকে জমি সহ ঘর দেয়ার নজির পৃথিবীর আর কোথাও নেই। ছিন্নমূল মানুষদের পুনর্বাসনের মাধ্যমে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়নে শেখ হাসিনা মডেল তথা আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প বাস্তবায়নে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসন বদ্ধপরিকর।’
জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্র জানায়, পঞ্চম ধাপে দ্বিতীয় পর্যায়ে ২৩৪টি ঘরের মধ্যে চন্দনাইশ উপজেলায় ১৫৫টি, সীতাকুন্ডে ৪৫টি, মিরসরাইয়ে ৩৪টি পরিবারকে গৃহ করা হবে আজ। মিরসরাইয়ে নতুনভাবে বরাদ্দ দেয়া ৭৩টি ঘরের নির্মাণ কাজ শেষের পথে। ইতোমধ্যে ১২টি উপজেলা ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করা হয়েছে। চন্দনাইশ, সীতাকুন্ড ও সন্দ্বীপ গৃহহীনমুক্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। আজকে ২৩৪টি ঘর হস্তান্তরের মধ্যদিয়ে প্রধানমন্ত্রী পুরো চট্টগ্রামকে ভ‚মিহীন ও গৃহহীনমুক্ত ঘোষণা করতে পারেন।
সারাদেশের ন্যায় চট্টগ্রাম জেলায় ১ম পর্যায়ে এক হাজার ৪৪৪টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ঘর প্রদান করা হয়েছে। পরবর্তীতে ২য় পর্যায়ে ২০২১ সালের ২০ জুন ৬৪৯টি পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ঘর প্রদান করা হয়েছে। ১ম ও ২য় পর্যায়ের সাফল্যের ধারাবাহিকতায় ৩য় পর্যায়ে গত ২০২২ সালের ২৬ এপ্রিল এক হাজার ২১৬টি ভ‚মিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ঘর প্রদান করা হয়েছে। একই সালের ২১ জুলাই আরও ৫৮৭টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ ঘর প্রদান করা হয়েছে। ২০২৩ সালের ২২মার্চ চট্টগ্রাম জেলায় ৩য় পর্যায়ের অবশিষ্ট ১৫৯টি ও ৪র্থ পর্যায়ের ৮৯৩টিসহ মোট ১০৫২টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ ঘর প্রদান করা হয়। পঞ্চম পর্যায়ে এ পর্যন্ত ৩৮৮ ঘরের বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এরমধ্যে ২০২৩ সালের ১৪ নভেম্বর ৮১টি পরিবারকে গৃহ হস্তান্তর করা হয়। আজ ২৩৪টি ঘরের চাবি হস্তান্তর করা হবে। পঞ্চম পর্যায়ে বরাদ্দ পাওয়া ঘরের মধ্যে মিরসরাইয়ের ৭৩টি ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে।
প্রসঙ্গত, ‘মুজিবশতবর্ষে একজন লোকও গৃহহীন থাকবে না’ প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সারাদেশে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ সম্পূর্ণ সরকারি অর্থায়নে ঘর প্রদানের কার্যক্রম গ্রহণ করে। তারই ধারাবাহিকতায় প্রধানমন্ত্রী ২০২১ সালের ২৩ জানুয়ারি ১ম পর্যায়ে সারাদেশে ৬৩ হাজার ৯৯৯টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে ২ শতাংশ জমিসহ ঘর বরাদ্দ প্রদান কার্যক্রম উদ্বোধন করেন। এরই ধারাবাহিকতায় আজকে চট্টগ্রাম ভূমিহীন ও গৃহহীনমুক্ত হতে যাচ্ছে।