বোয়ালখালীর কর্ণফুলী ও ৫ খালের ভাঙনরোধে প্রকল্প

12

নিজস্ব প্রতিবেদক

বোয়ালখালী উপজেলার কর্ণফুলী নদীর তীর ও পাঁচটি শাখা খালের ভাঙ্গনরোধে ১৩৪ কোটি টাকার প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের সভায় প্রকল্পটি অনুমোদন দেন। এই প্রকল্পটি একনেক সভার আলোচ্যসূচিতে প্রথম থাকায় ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে দেশের প্রথম প্রকল্প হিসেবে এটিকেই অনুমোদন দেন। প্রধানমন্ত্রী মাউস টিপে প্রকল্পটি উদ্বোধনের মধ্যদিয়ে প্রকল্পে কাগজের ব্যবহার কমবে। এখন থেকে অনলাইনে প্রকল্প পর্যবেক্ষণ করে অনলাইনে অনুমোদন দেয়া যাবে। পাউবো সূত্র জানায়, বোয়ালখালীর ‘কর্ণফুলী নদী এবং সংযুক্ত খালসমূহের বিভিন্ন স্থানে ভাঙ্গন রোধকল্পে তীর সংরক্ষণ কাজ’ প্রকল্পটি ১৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে বাস্তবায়ন করবে পানি উন্নয়ন বোর্ড। বোয়ালখালীর কধুরখীল, চরণদ্বীপ, শ্রীপুর খরণদ্বীপ, শাকপুরা, গোমদন্ডী ইউনিয়নে অন্তর্ভূক্ত এলাকায় অবস্থিত জনগুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা পাহাড়ী খরস্রোতা কর্ণফুলী নদী, বোয়ালখালী খাল, রাইখালী খাল, ছন্দরীয়া খালা, ভারাম্বা খাল, নাজিরখালী খালের ভাঙ্গন হতে রক্ষা করা। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে কর্ণফুলী নদীর বামতীরবর্তী চট্টগ্রাম-বোয়ালখালী সংযোগ সড়কের যোগাযোগ ব্যবস্থা অক্ষুন্ন রাখার জন্য ঝুঁকিপূর্ণ স্থানসমূহে তীর সংরক্ষণ, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে অতিবৃষ্টি আকস্মিক বন্যা, পাহাড়ী ঢলের কারণে সৃষ্ট নদী-খাল সমূহের তীর ভাঙ্গনরোধ, কর্ণফুলী নদী এবং এর সংযুক্ত খালসমূহের তীর সংরক্ষণ কাজের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টির মাধ্যমে গ্রামীণ বেকারত্ব দূরীকরণ, নদী ভাঙ্গন রোধের মাধ্যমে জীনগত, প্রজাতিগত এবং বাস্তুসংস্থানগত বৈচিত্র রক্ষা, নদী তীরবর্তী ভাঙ্গন কবলিত স্থান প্রতিরক্ষা করে পর্যটন শিল্প বিকাশ ঘটবে। গত বছরের ২৭ নভেম্বর প্রকল্পটি নিয়ে পিইসি সভায় প্রকল্পটি পুনর্গঠন করা হয়।
পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী (রাঙ্গামাটি বিভাগ) তয়ন কুমার ত্রিপুরা পূর্বদেশকে বলেন, ‘কর্ণফুলী নদীর বাম পাড় ও গুরুত্বপূর্ণ বেশ কয়েকটি খালের ভাঙ্গন রোধে প্রকল্পটি হাতে নেয়া হয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে প্রথম প্রকল্প হিসেবে বোয়ালখালীর প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদন দেন। মাউস টিপে প্রকল্প উদ্বোধন করায় প্রকল্পের কাগজের ব্যবহার কমবে। ১৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে। এতে কর্ণফুলী নদী ও বিভিন্ন শাখা খালের ভাঙ্গন প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।’