বৃহত্তর চট্টগ্রামে ৩৬ ঘণ্টা পণ্যবাহী সড়ক পরিবহন শ্রমিক কর্মবিরতি কাল

2

শ্রম আইন অনুযায়ী সড়ক পরিবহন শ্রমিকদের নিয়োগপত্র প্রদান, প্রশাসন কর্তৃক গাড়ির অন্যান্য ডকুমেন্টের সাথে নিয়োগপত্র চেকিং, চট্টগ্রাম জেলা ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যকরী কমিটির সদস্য শ্রমিক নেতা মো. সেলিম, কর্মী আলমগীর ও চট্টগ্রাম আন্তঃজেলা ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সদস্য মো. রফিকের মিথ্যা মামলার ফাইনাল রিপোর্ট প্রদান, সড়ক পরিবহন সেক্টরে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের অপতৎপরতা বন্ধ এবং সড়কে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে প্রশাসন, শ্রমিক সংগঠন, মালিক সংগঠন এর ত্রিপাক্ষিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী স্বাধীনভাবে শ্রমিক কল্যাণ/সার্ভিস চার্জ আদায়ে সহযোগিতা প্রদান, ২০১৮ সালের সড়ক পরিবহন আইনের সংশোধন, অত্যাবশ্যকীয় পরিষেবা আইন বাতিল, চুক্তি অনুযায়ী বিপিসি কর্তৃক অবিলম্বে ট্যাংকলরী টার্মিনাল সংস্কার এবং বিপিসি কর্তৃক বন্দরে ৫০% ভাড়া পরিশোধ, ক্যাটাগরী ভিত্তিতে ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রদান ও ডোপ টেস্টের নামে হয়রানি বন্ধ, মেট্রো, জেলা, উপজেলা ও হাইওয়েতে সড়ক পরিবহন শ্রমিকদের উপর পুলিশী নির্যাতন বন্ধ, মেট্রো ও জেলা ভিত্তিক প্রাইমমুভার ট্রেইলার ও ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণসহ অন্যান্য দাবিতে ১৯ মে সকাল ৬টা থেকে ২০ মে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত বৃহত্তর চট্টগ্রাম পণ্যবাহী সড়ক পরিবহন শ্রমিক সমন্বয় পরিষদের কর্মবিরতি চলবে।
চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকাসহ বৃহত্তর চট্টগ্রামের ৫ জেলা তথা চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, রাঙামাটি, বান্দরবান ও খাগড়াছড়িতে ৩৬ ঘণ্টা পণ্যবাহী সড়ক পরিবহন শ্রমিক কর্মবিরতির প্রতি বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন শ্রমিক ফেডারেশন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ মুছা ও সাধারণ সম্পাদক অলি আহামদ এক বিবৃতিতে পূর্ণ সমর্থন জানিয়েছেন। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে পণ্যবাহী সড়ক পরিবহন শ্রমিকদের যৌক্তিক দাবি মেনে নেওয়ার জন্য যথাযথ কর্তৃপক্ষের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। বিজ্ঞপ্তি