বিশ্রামে মোস্তাফিজ অভিষেক ইবাদতের

32

ঠিক বিভীষিকাময় বলা যাবে না, তবে ইতিহাস-পরিসংখ্যান জানাচ্ছে টাইগারদের নিউজিল্যান্ড সফর সবসময়ই কঠিন। নিউজিল্যান্ডের মাটিতে টিম বাংলাদেশের সে অর্থে তেমন সাফল্যও নেই। ২০১৭ সালের শেষ সফরেও দুই টেস্টে রীতিমত খাবি খেয়েছিল সাকিব আল হাসানের দল।
পরিসংখ্যান যাদের কথা বলছে, যে দুই তারকা ট্রেন্ট বোল্ট-টিম সাউদিদের নিয়ে গড়া কিউই ফাস্ট বোলিং আক্রমণের সামনে মাথা তুলে দাঁড়িয়েছিলেন গতবার, তারাই এবার নেই। সাকিব আল হাসান তো হাতের চোটে পুরো সিরিজের বাইরে। মুশফিক পাঁজরের ব্যথায় এই টেস্টে খেলছেন না। পরের টেস্টেও খেলবেন কি না, বলা যাচ্ছে না।
এই দুই অপরিহার্য পারফরমার ছাড়া শক্তির ভারসাম্য কমে গেছে অনেক। ‘টু ইন ওয়ান’ সাকিবের অনুপস্থিতি ব্যাটিং-বোলিং দুই বিভাগকেই করেছে দুর্বল। আর নির্ভরতার প্রতীক মুশফিক না থাকায় মিডল অর্ডারে তৈরি হয়েছে বড় ধরণের ঘাটতি।
প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নুর দেয়া একাদশ অনুযায়ী প্রথম টেস্টের দলে নেই মোস্তাফিজুর রহমান। বাঁহাতি এই পেসারকে বিশ্বকাপের আগে যতটা সম্ভব কম শারীরিক ধকল দিতে চাচ্ছে টিম ম্যানেজম্যান্ট। তাই কাটার মাস্টারকে তিন টেস্ট খেলানো থেকে বিরত রাখার চিন্তা। তার অনুপস্থিতিতে পেস আক্রমণের দায়িত্ব বর্তেছে তিন তরুণ-খালেদ আহমেদ, আবু জায়েদ রাহি আর ইবাদত হোসেনের উপর।
প্রধান নির্বাচকের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশ মাঠে নামবে ছয় ব্যাটসম্যান-তামিম ইকবাল, সাদমান ইসলাম, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ আর সৌম্য সরকারকে নিয়ে।
তার সঙ্গে তিন পেসার- ইবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহি আর খালিদ আহমেদ। দুই বিশেষজ্ঞ স্পিনার হিসেবে থাকছেন-মেহেদী হাসান মিরাজ আর তাইজুল ইসলাম।
ওয়ানডে সিরিজে পরপর দুই ম্যাচে ফিফটি হাঁকানো মোহাম্মদ মিঠুন চোট কাটিয়ে আসছেন একাদশে। প্রধান নির্বাচকের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, একাদশ থেকে থেকে বাদ পড়ছেন লিটন দাস।
বাংলাদেশের সম্ভাব্য একাদশ: তামিম ইকবাল, সাদমান ইসলাম, মুমিনুল হক, মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, সৌম্য সরকার, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, ইবাদত হোসেন, আবু জায়েদ রাহি আর খালিদ আহমেদ।