বিমানের ময়ূরপঙ্খী আবার উড়ছে আগামীকাল

41

ছিনতাইচেষ্টার শিকার হওয়া বিমানের উড়োজাহাজ ময়ূরপঙ্খীর মেরামত কাজ শেষ হয়েছে, ১১ দিন পর এটি আবার যাত্রী নিয়ে উড়তে যাচ্ছে। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের জনসংযোগ শাখার মহাব্যবস্থাপক (জিএম) শাকিল মেরাজ গতকাল মঙ্গলবার এতথ্য জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘ওই ঘটনার পর এয়ারক্রাফটি কিছু মেরামতের কাজের জন্য পাঠানো হয়েছিল। সিভিল এভিয়েশনের অনুমতি নিয়ে ৭ মার্চ থেকে এটি স্বাভাবিক অপারেশনে ফিরছে’।
বোয়িং ৭৩৭-৮০০ মডেলের ওই উড়োজাহাজটি গত ২৪ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ের উদ্দেশ্যে ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে ওড়ার পর আকাশে ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছিল। পরে চট্টগ্রামের শাহ আমানত বিমানবন্দরে উড়োজাহাজটি অবতরণের পর যাত্রী, পাইলট ও কেবিন ক্রুরা বেরিয়ে আসার পর কমান্ডো অভিযানে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা পড়েন ছিনতাইয়ের চেষ্টাকারী যুবক পলাশ আহমেদ। পরে জানা যায়, পলাশ একটি খেলনা পিস্তল দেখিয়ে হুমকি দিয়েছিলেন। তার সঙ্গে ‘বিস্ফোরক সদৃশ’ বস্তুও ছিল।
ওই ঘটনার পর মেরামত কাজের জন্য পাঠানো হয়েছিল ময়ূরপঙ্খীকে।
সেদিন উড়োজাহাজটিতে গুলি লেগেছিল কি না- প্রশ্ন করা হলে শাকিল মেরাজ বলেন, ‘পুরো ঘটনাটির তদন্ত চলছে। এই নিয়ে আমরা কিছু বলতে পারব না’।
রাষ্ট্রায়ত্ত বিমান সংস্থার বহরের এই বোয়িং উড়োজাহাজটি এখন কোন রুটে চলবে, তাৎক্ষণিকভাবে তা জানাতে পারেননি তিনি। খবর বিডিনিউজের
বিমান ছিনতাইয়ের এই ঘটনায় নিরাপত্তায় অবহেলার জন্য ইতোমধ্যে শাহজালালে কর্মরত বেবিচকের দুই নিরাপত্তা কর্মকর্তা এবং তিনজন আনসার সদস্যকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। প্রত্যাহার করা হয়েছে বিমানবাহিনীর এক সার্জেন্টকে।
ঘটনার বিস্তারিত বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের কাছে জানতে চেয়েছে সংসদীয় স্থায়ী কমিটি।