প্রার্থিতা ফিরে পেলেন তিমির বরণ চৌধুরী

66

পটিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে গতকাল মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিনে সংরক্ষিত মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে দুই প্রার্থীর মধ্যে সুমি দে সাথী তার মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। ওই পদে আর কোনো প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী না থাকায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ের পথে আছেন মাজেদা বেগম শিরু। এদিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী তিমির বরণ চৌধুরী উচ্চ আদালতের নির্দেশে তার প্রার্থিতা ফিরে পেয়েছেন।
এর আগে ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী দেশরত্ন পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন একই পদপ্রার্থী তিমির বরণের বিরুদ্ধে মনোনয়ন ফরমে ভুল তথ্য দেয়ার অভিযোগ দায়ের করেছিলেন জেলা রিটার্নিং অফিসারের কাছে। অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তিমির বরণের মনোনয়ন বাতিল করেছিলেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা। প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় ওই পদে এখন প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী হলেন ৩ জন। এছাড়া চেয়ারম্যান পদে রয়েছেন ৩ জন প্রার্থী।
জানা গেছে, বৃহস্পতিবার তিমির বরণ চৌধুরীর মনোনয়ন বাতিল আদেশ স্থগিত করেন হাইকোর্ট। হাইকোর্টে তিমির বরণের এক রিট পিটিশনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের যৌথ বেঞ্চ শুনানি শেষে চট্টগ্রাম জেলা রিটার্নিং অফিসারের দেওয়া মনোনয়ন বাতিল আদেশ স্থগিত করেন। এই আদেশ কেন অবৈধ ও বাতিল ঘোষণা করা হবে না মর্মে রুল জারি করেন।
চেয়ারম্যান প্রার্থী আওয়ামী লীগ মনোনীত দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরীর সাথে দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছেন। তারা হলেন-বিএনপি থেকে বহিষ্কৃত নারী নেত্রী আফরোজা বেগম জলি ও মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন। ২৪ মার্চ উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক তিমির বরণ চৌধুরী জানিয়েছেন, জেলা রিটার্নিং অফিসার তার মনোনয়ন ফরম বাতিল করলেও উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দায়ের করে তিনি তা স্থগিত করেছেন। এখন তিনি নির্বাচন করতে আর কোন বাধা নেই।
পটিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ছৈয়দ আবু ছাঈদ বলেন, প্রত্যাহারের শেষ দিনে শুধুমাত্র মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী সুমি দে সাথী মনোনয়ন প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। ফলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবেন মাজেদা বেগম শিরু। তাছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী তিমির বরণ চৌধুরীর মনোনয়ন বাতিল সংক্রান্ত আদেশ উচ্চ আদালতের নির্দেশে স্থগিত হয়েছে বলে শুনেছি। তবে এখনো কোন কাগজপত্র পাওয়া যায়নি।