নগর মৎস্যজীবী দলের প্রস্তুতি সভা

38

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি ডা. শাহাদাত হোসেন বলেছেন, বর্তমান সংসদ জনগণের ভোটের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়নি। আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ব্যবহার করে নির্বাচনের ফলাফল জবরদস্তি নিজেদের পক্ষে নিয়েছে। সেই কারণে জনগণের কাছে কোন প্রতিষ্ঠানের জবাবদিহিতার কোন সুযোগ নেই। রাষ্ট্রের সকল ক্ষেত্রে নৈরাজ্য চলছে। বিচার বিভাগও এর প্রভাব থেকে মুক্ত নয়। তিনি গত ১৭ জুলাই বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমাবেশ সফল করার লক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির কার্যালয়ে নগর মৎস্যজীবী দল আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এত তিনি আরো বলেন, পাবনার ইশ্বরদীতে ১৯৯৪ সালে তৎকালীন বিরোধী দলের নেতার ট্রেনের ওপর হামলা সংক্রান্ত মামলায় নিম্ন আদালতে যে রায় দিয়েছে তা নজিরবিহীন। কোন প্রকার হতাহতের ঘটনা ছাড়া সরকারের নির্দেশে বিএনপির ৯ জনকে মৃত্যুদÐ, ২৫ জনকে যাবজ্জীবন কারাদÐ ও ১৩ জনকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদÐের শাস্তি প্রদান করে। তিনি বলেন, একই কায়দায় দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারান্তরিন করে রেখেছে। বেগম জিয়াকে বন্দি রেখে সরকার নিজেদের ক্ষমতা নিরাপদ রাখতে চায়। কিন্তু বিএনপির নেতাকর্মীরা সরকারের সে স্বপ্ন পূরণ হতে দেবে না। আগামী ২০ তারিখের বেগম জিয়ার মুক্তির সমাবেশে মৎস্যজীবী দলের নেতাকর্মীরা ব্যাপক উপস্থিতির মাধ্যামে সরকারের সকল অনৈতিক কার্মের দাঁতভাঙা জবাব দেবে। প্রধান বক্তার বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আবুল হাশেম বক্কর বলেছেন, বেগম খালেদা জিয়া স্বৈরশাসকের বিরুদ্ধে দীর্ঘ নয় বছর আন্দোলন করে দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় এসে তিনি মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। ফিরিয়ে দিয়েছিলেন গণতন্ত্র। তিনি বলেন, বর্তমান ফ্যাসিষ্ট সরকার একেবারে মিথ্যা মামলায় দেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী বেগম জিয়াকে প্রায় ১৭ মাস ধরে কারাগারে আটকে রেখেছে। আগামী ২০ জুলাই তার মুক্তির দাবিতে চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে। মৎস্যজীবী দলের প্রতিটি নেতাকর্মী বেগম জিয়ার মুক্তির সমাবেশ সফল করতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেন, শেখ হাসিনা জনগণের ভোটে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রী নন। ৩০ ডিসেম্বরের মধ্যরাতে ভোটে ক্ষমতা দখল করে আছে। তারা গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে পূনরায় বাকশাল প্রতিষ্ঠা করেছে। আওয়ামীলীগের ফ্যাসিস্ট শাসনে যাতে কোন বাধা না থাকে সেজন্য গণতন্ত্রের মা বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে বন্দি করে রাখা হয়েছে। তারা বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি রেখে হত্যা করার পাঁয়তারা করছে। চট্টগ্রাম মহানগর মৎস্যজীবী দলের আহবায়ক হাজী নুরুল হকের সভাপতিত্বে এবং সদস্যসচিব এড. মুহাম্মদ আবদুল আজিজের পরিচালনায় এতে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইয়াছিন চৌধুরী লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম, মোহাম্মদ মিয়া, মো. জাফর, তৈয়ব, মাস্টার জসিম উদ্দীন, ইকরাম বিল্লাহ, মো. নুরুদ্দীন, মো. সেলিম, আলাউদ্দিন, হাফেজ আনোয়ারুল আজিম, মো. খালেদ, নুরুল আবছার, মো. নয়ন, মনজুর আলম, মাহফুজ, মো. রুবেল, মো. আকবর প্রমুখ। বিজ্ঞপ্তি