দেশ ও জাতির বিকাশে চাই সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চা

6

চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের কার্যালয়ে বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশন বৌদ্ধ শিল্পী সংস্থা নেতৃবৃন্দ চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এ টি এম পেয়ারুল ইসলামকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান ও সৌজন্যে সাক্ষাতে মিলিত হন গতকাল বুধবার বেলা ১১ টায়। এসময় পেয়ারুল ইসলাম বলেন, ব্যাপক সাংস্কৃতিক চর্চার মাধ্যমে একটি জাতির প্রকৃত বিকাশ সম্ভব এবং বাংলাদেশের স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধ গণতান্ত্রিক আন্দোলনই এর সত্যতা জোরালোভাবে প্রমাণ করে। সাংস্কৃতিক চর্চা জাতিকে এগিয়ে নেয়। একটি স্বাধীন রাষ্ট্রকে সম্পূর্ণভাবে যদি উন্নত করতে হয় তাহলে শুধু অর্থনৈতিক মুক্তি নয়, যেটা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলে গেছেন, সাংস্কৃতিক মুক্তিটাও একান্তভাবে প্রয়োজন এবং সাংস্কৃতিক চর্চার ক্ষেত্রটা প্রসারিত করা। একান্তভাবে বাঙালিরা সব সময় নিজেদের উত্তরণ ঘটাতে সক্ষম হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সেই বাণী, আমাদের কেউ দাবায়ে রাখতে পারবা না’ উল্লেখ করে বলেন, তাই বাঙালিকে কেউ কখনো দাবিয়ে রাখতে পারে নাই। অধিকার আদায়ের সংগ্রামে—মার্শাল ল-এর বিরুদ্ধে সংগ্রামে আমাদের সাংস্কৃতিক কর্মীরা বিশাল ভূমিকা রখেছেন। তাঁদের অবদান সব সময় আমরা স্মরণ করি। সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা বা সহযোগিতা ছাড়া কখনো সাংস্কৃতির পূর্ণ বিকাশ হতে পারে না। সে লক্ষ্য বাস্তবায়নেই কাজ করছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সঙ্গীত পরিচালক নাট্যজন সঞ্জীব বড়ুয়া, অপু বড়ুয়া, ত্রিদিব কুসুম বড়ুয়া, শাশ^ত তালুকদার, প্রমা আবন্তী, প্রিয়তোষ বড়ুয়া, স্বপন বড়ুয়া, সাগরিকা বড়ুয়া, পাপড়ি বড়ুয়া, তাপস কুমার বড়ুয়া।