দুই দিনের সফরে ঢাকায় ডোনাল্ড লু

4

ঢাকা প্রতিনিধি

দুই দিনের সফরে ঢাকায় এসেছেন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু। বাংলাদেশের দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর প্রথমবার ঢাকা সফরে এলেন যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র দফতরের কোনও কর্মকর্তা। গতকাল সকালে কলম্বো থেকে ঢাকা আসেন ডোনাল্ড লু। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উত্তর আমেরিকা অনু বিভাগ মহাপরিচালক খন্দকার মাসুদুল আলম। দুইদিনের সফরের প্রথম দিনের শুরুতে তিনি বিমানবন্দর থেকে সরাসরি যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসে যান।
রাতে তিনি প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের আমন্ত্রণে নৈশভোজে অংশগ্রহণ করেন। রাজধানীর গুলশানে সালমান এফ রহমানের বাসভবনে এই নৈশভোজের আয়োজন করা হয়। ডোনাল্ড লুর সম্মানে আয়োজিত এই নৈশভোজে আরও উপস্থিত ছিলেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, বাণিজ্যপ্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিপু, তথ্য ও স¤প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ এ আরাফাত, পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন, সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, অ্যাম্বাসেডর ফারুক সোবাহান ও ড. কাজী খলিকুজ্জামান আহমেদ।
এর আগে বিকেলে নাগরিক সমাজের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত পিটার হাসের বাসায় মতবিনিময় করেন তিনি।
মতবিনিময়ের সময় তিনি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন-পরবর্তী পরিস্থিতি নিয়ে জানতে চেয়েছেন। এর পাশাপাশি ফিলিস্তিন ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান এবং নিজ দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষার্থী, শিক্ষকসহ নাগরিকদের ওপর মার্কিন সরকারের দমন-পীড়নের ভূমিকায় বাংলাদেশের নাগরিক সমাজের সমালোচনার মুখে পড়েন মার্কিন এ কর্মকর্তা।
ঢাকা সফরের প্রথম দিনে ডোনাল্ড লু বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির পাশাপাশি এখানকার অর্থনীতি, শ্রম অধিকার, জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কেও জানতে চেয়েছেন।
এ মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন, দ্য ডেইলি স্টারের সম্পাদক মাহফুজ আনাম, বাংলাদেশ সেন্টার ফর উইমেন ওয়ার্কার্স সলিডারিটির নির্বাহী পরিচালক কল্পনা আক্তার, মানবাধিকার কর্মী নূর খান লিটন, চাকমা সার্কেলের রানী ও মানবাধিকার নেত্রী রানী ইয়ান ইয়ান, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তনবিষয়ক আন্দোলনের সংগঠক সোহানুর রহমান এবং তরুণ সংগঠক মাহমুদা আক্তার মনীষা। এতে দূতাবাসের কর্মকর্তারাও উপস্থিত ছিলেন।
মতবিনিময় শেষে সোহানুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, নির্বাচন-পরবর্তী রাজনৈতিক পরিস্থিতি, মানবাধিকার, শ্রম অধিকার, অর্থনৈতিক পরিস্থিতি, জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলা, মধ্যপ্রাচ্য পরিস্থিতিসহ নানা প্রসঙ্গ নিয়ে আলোচনা হয়েছে।
পরে মানবাধিকার কর্মী নূর খান গণমাধ্যমকে বলেন, দেশের সামগ্রিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে। চা-চক্রে দেশের বর্তমান পরিস্থিতিসহ রাজনৈতিক ও সামাজিক বিষয়গুলো আলোচনায় স্থান পেয়েছে।
এদিকে, ঢাকা সফরের সময় লু সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে হতে যাওয়া বৈঠকগুলোতে ব্যবসা-বাণিজ্য, শ্রম অধিকার, জলবায়ু পরিবর্তন, রোহিঙ্গা ইস্যু, প্রতিরক্ষাসহ নিরাপত্তা ইস্যুতে আলোচনা করবেন। নিরাপত্তা ইস্যুকে প্রধান অগ্রাধিকার দিয়ে ওয়াশিংটন আঞ্চলিক ও বৈশ্বিক নিরাপত্তা নিয়ে আলোচনা করতে চাইবে। এছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রনীতির প্রধান বিষয়গুলো গণতন্ত্র, মানবাধিকারের মতো বিষয়গুলো নিয়েও আলোচনা অব্যাহত রাখবে ওয়াশিংটন।
আজ সকালে ইএমকে সেন্টারে যাবেন ডোনাল্ড লু। সেখান থেকে সচিবালয়ে পরিবেশ, বন ও জলবায়ুবিষয়ক মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন তিনি। এর পর সেখান থেকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করবেন। সেখান থেকে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেনের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন ডোনাল্ড লু। আজ রাতেই তার ঢাকা ছাড়ার কথা রয়েছে।
ভারত ও শ্রীলঙ্কা হয়ে বাংলাদেশ সফরে এসেছেন ডোনাল্ড লু। গত শুক্রবার থেকে লুর ছয় দিনের সফরের তথ্য জানায় মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর। গত বৃহস্পতিবার মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের ওয়েবসাইটে জানানো হয়, ১০ থেকে ১৫ মে ভারত, শ্রীলঙ্কা ও বাংলাদেশ সফর করবেন ডোনাল্ড লু। তার এ সফরের মধ্য দিয়ে দেশগুলোর সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদার হবে বলে প্রত্যাশা ওয়াশিংটনের। যুক্তরাষ্ট্র যে একটি মুক্ত, অবাধ ও সমৃদ্ধ ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল দেখতে চায়, ডোনাল্ড লুর সফরে সেটিই গুরুত্ব পাবে।
গত বছরের জুলাইয়ে তিনি সর্বশেষ বাংলাদেশ সফর করেন। তখন তিনি যুক্তরাষ্ট্রের বেসামরিক নিরাপত্তা, গণতন্ত্র ও মানবাধিকার বিষয়ক আন্ডার সেক্রেটারি আজরা জেয়ার সঙ্গী হয়ে ঢাকায় আসেন।
ঢাকায় এসে ফুচকা-ঝালমুড়ি খেলেন ডোনাল্ড লু : মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু ঢাকায় এসে ফুচকা ও ঝালমুড়ির স্বাদ নিয়েছেন।গতকাল ঢাকার মার্কিন দূতাবাসের ফেসবুকে এক ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়াবিষয়ক সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডোনাল্ড লু ফুচকা ও ঝালমুড়ির স্বাদ নিচ্ছেন। এ সময় ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাসও উপস্থিত ছিলেন।
সেলিব্রিটি শেফ রহিমা সুলতানার ফুচকা ও ঝালমুড়ির স্বাদ নিয়েছেন তারা। এ সময় ডোনাল্ড লু-রাষ্ট্রদূত পিটার হাস বলেন, ‘বাংলাদেশের ফুচকা ইজ দ্য বেস্ট’।