গাজায় যুদ্ধ চলবে আরও ৭ মাস: ইসরায়েল

3

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

ইসরায়েলের জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা বলেছেন, গাজায় হামাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধ অন্তত এ বছরের বাকি সময়ের পুরোটা ধরেই চলবে বলে তিনি মনে করেন। দেশটির প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জাচি হানেগবি সরকারি রেডিও কান-কে তিনি বলেন, আরও সাত মাস যুদ্ধ হবে বলে মনে করছি। তিনি বলেন, ইসরায়েলের সামরিক বাহিনী গাজা-মিসর সীমান্তজুড়ে বাফার জোনের ৭৫ শতাংশ নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নিয়েছে। ইসরায়েলি সামরিক বাহিনী দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহ শহরে হামলা চালিয়েই যাচ্ছে। এদিকে রাফাহ শহরের বাসিন্দারা আরও বেশি ইসরায়েলি বিমান হামলার খবর জানিয়েছেন। ট্যাঙ্কগুলো পেছনের দিকে যাওয়ার আগে মধ্য ও পশ্চিমাঞ্চলে হামলা চালিয়েছে বলেও জানান তারা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডবিøউএইচও) জ্যেষ্ঠ এক কর্মকর্তা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, রাফার শেষ হাসপাতালটি কোনোক্রমে চালু রয়েছে। ইসরায়েলি সেনাদের ‘সম্পূর্ণ অনুপ্রবেশ’ এটিকে বন্ধ করে দিতে পারে এবং ‘উল্লেখযোগ্য’ সংখ্যক মৃত্যুর কারণ হতে পারে।
রাফা থেকে গত তিন সপ্তাহে এক মিলিয়নের বেশি ফিলিস্তিনি পালিয়েছেন। ইসরায়েল প্রতিরক্ষা বাহিনী (আইডিএফ) মঙ্গলবার বলে যে, সেখানে হামাসের অবশিষ্ট ব্যাটালিয়নের বিরুদ্ধে তাদের সেনারা সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য ঠিক করে হামলা পরিচালনা করছে। যুক্তরাষ্ট্র সরকার বলছে, তারা মনে করে না যে, এমন কোনো স্থল অভিযান চলছে, যা ইসরায়লের জন্য তাদের সামরিক সহায়তা নীতিতে পরিবর্তন ঘটাতে পারে। গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে হামলা চালায় হামাস। এতে প্রায় এক হাজার ২০০ ইসরায়েলির প্রাণ যায়। হামাস জিম্মি করে নেয় ২৫২ জনকে। এ ঘটনার পর গাজায় যুদ্ধ শুরু করে ইসরায়েল। ইসরায়েল জোর দিয়ে বলছে যে, এ যুদ্ধে বিজয় অর্জনের জন্য তাদের অবশ্যই রাফাহ নিয়ন্ত্রণে নিতে হবে। ৭ অক্টোবরের পর থেকে গাজায় ইসরায়েলি হামলায় অন্তত ৩৬ হাজার ১৭০ জনের প্রাণ গেছে বলছে হামাস-শাসিত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।