‘গন্ডি’তে সুবর্ণা মুস্তাফা

73

ফ্রেন্ডশিপ হ্যাজ নো বাউন্ডারি—এই ট্যাগলাইন নিয়ে নির্মিত হচ্ছে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘গন্ডি’। এর প্রধান দুই চরিত্রের একটিতে অভিনয় করছেন দেশের নন্দিত অভিনেত্রী সুবর্ণা মুস্তাফা। এটি চূড়ান্ত। অন্য চরিত্রে তার বিপরীতে থাকার কথা রয়েছে বলিউডের কিংবদন্তি অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহর! তবে বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত নয়। এমনটাই জানালেন নির্মাতা ফাখরুল আরেফিন খান। তিনি জানান, আসছে বছরের ৫ জানুয়ারি চূড়ান্ত কথা হবে নাসিরুদ্দিন শাহের সঙ্গে। তবে সেই বৈঠকে নাসিরুদ্দিন চূড়ান্ত সম্মতি না দিলে পরের পছন্দ হিসেবে ফাখরুল ধরে রেখেছেন কলকাতার ‘ফেলুদা’ খ্যাত অভিনেতা সব্যসাচী চক্রবর্তীকে। প্রশংসিত ‘ভুবন মাঝি’র পর ফাখরুল আরেফিন খানের নতুন সিনেমা এটি। স¤প্রতি লন্ডনে হয়ে গেল এর প্রথম পর্বের শুটিং। সেখানে অংশ নেন মাজনুন মিজান, অপর্ণা ঘোষ ও শিশুশিল্পী ফিয়োনা। পরিচালক জানান, ছবিটির কাহিনি এগিয়ে যাবে মূলত ৫৫ ও ৬৫ বছর বয়সী দু’জন নারী-পুরুষের গল্প নিয়ে। কিছুটা অবসরে থাকা এই বয়সে দু’জন নারী-পুরুষের বন্ধুত্ব কেমন হয়, পরিবার এবং আশপাশের মানুষ বিষয়টিকে কীভাবে নেয়, এসব বিষয় উঠে আসবে এই সিনেমার গল্পে। নির্মাতা এই দুটি চরিত্রকে পর্দায় তুলে ধরতে চাইছেন সুবর্ণা মুস্তাফা ও নাসিরুদ্দিন শাহের মাধ্যমে।
এদিকে ২৩ ডিসেম্বর ‘গন্ডি’র প্রথম অংশের শুটিং শেষ করে লন্ডন থেকে দেশে ফিরেছেন ফাখরুল আরেফিন। তিনি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘লন্ডন অংশের কাজ ভালোই হয়েছে। তবে ছবির কাজ শেষ করতে ২০১৯ সালের পুরোটা সময় লাগবে আমার। আর এটি মুক্তি দেওয়ার ইচ্ছে আছে ২০২০ সালের ১০ জানুয়ারি। সেই পরিকল্পনা নিয়েই এগুচ্ছি আমরা।’ জানা গেছে, কক্সবাজারে আগামী বছরের মার্চে হবে ছবিটির দ্বিতীয় অংশের শুটিং আর শেষাংশের কাজ হবে ঢাকায়, আগস্ট মাসে। তবে এর সবটাই নির্ভর করছে ফাখরুল বনাম নাসিরুদ্দিনের ৫ জানুয়ারির বৈঠকের ওপর।