কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের দিয়ে রাস্তায় মানববন্ধন মারাত্মক অপরাধ

52

চট্টগ্রামের রাউজানে অবস্থিত ঐতিহ্যবাহী কাগতিয়া মাদরাসা সুদীর্ঘকাল থেকে ইসলামের শরীয়ত ও তরিক্বতের প্রচার কেন্দ্র হিসাবে দেশ-বিদেশে সূখ্যাতি অর্জন করে। মহান মনিষী হযরত শায়খ ছৈয়্যদ গাউছুল আজম (রাঃ) এর একমাত্র প্রতিনিধি মহান মোর্শেদ হযরতুলহাজ্ব আল্লামা অধ্যক্ষ ছৈয়্যদ মুহাম্মদ মুনির উল্লাহ্ আহমদী মাদ্দাজিল্লুহুল আলী তাঁর সুযোগ্য নেতৃত্বে এ মাদরাসা সূচারুরূপে পরিচালনা করে আসছেন । ১৯৩২ সালে প্রতিষ্ঠিত এতদাঞ্চলের পুরাতন ও ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কাগতিয়া এশাতুল উলুম কামিল এম. এ. মাদরাসা। এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সব সময় অন্যায় ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে সোচ্চার, যা দেশবাসী ও সরকার অবগত রয়েছেন। এ মাদরাসায় মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানরাসহ এলাকার হাজার হাজার শিক্ষার্থী লেখাপড়া শেষ করে সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এমনকি বিভিন্ন উন্নত দেশের বিভিন্ন সংস্থায় সুনামের সাথে কাজ করে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে অবদান রাখছেন। এ মাদরাসায় মহান একুশে ফেব্রুয়ারি ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস, ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস, ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসসহ ১৭ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এর জন্মদিন ব্যাপকভাবে পালন করা হয়ে থাকে। সরকারের শিক্ষা সংক্রান্ত সকল বিধিবিধান মেনে চলে বিজ্ঞান ও আধুনিক শিক্ষার সমন্বয়ে পরিচালিত এ মাদরাসার শিক্ষার্থীদের একাডেমিক সাফল্য বরাবরই উৎসাহব্যঞ্জক। এ মাদরাসায় দাখিল, আলিমস্তরসহ ইসলামী আরবি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ফাযিল, কামিল, আল-হাদিস এন্ড ইসলামিক ষ্টাডিস বিষয়ে অনার্স ও মাস্টার্সে কৃতিত্বের সাথে মনোরম পরিবেশে লেখাপড়া করছে। এ মাদরাসা এতিম ও সহায়হীন পরিবারের সন্তানদের জন্য এক অনুপম আশ্রয়স্থল। কিন্তু গভীর উদ্বেগের সাথে সংবাদপত্রের মাধ্যমে জানলাম আজ ২৪ জুন সকাল ১০টায় রাঙ্গামাটি সড়কে রাউজানের ৩৩টি মাদরাসার শিক্ষক-শিক্ষার্থী দিয়ে রাউজানের স্থানীয় এমপি তথাকথিত রাউজান জমিয়তুল মোদার্রেছিনের ব্যানারে মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করতে বাধ্য করা হচ্ছে। শিক্ষামন্ত্রণালয়ের আদেশ হচ্ছে- শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কোমলমতি ছাত্রছাত্রীদের দিয়ে যাতে রাস্তায় কোন মানববন্ধন বা কারো অভ্যর্থনা দেয়া না হয়। চলমান পরীক্ষার তারিখ পিছিয়ে শিক্ষার্থীদের শ্রেণীকক্ষ থেকে বের করে রাস্তায় দাঁড় করিয়ে মানববন্ধন করা জাতীর জন্য খুবই কলঙ্কজনক। এমতাবস্থায়, ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কাগতিয়া এশাতুল উলুম কামিল এম. এ. মাদরাসার সুনাম ক্ষুন্ন হয় এমন তৎপরতা থেকে বিরত থাকার জন্য এবং এ ব্যাপারে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান জানাচ্ছি। আমরা রাউজানবাসীর পক্ষ থেকে এ অবৈধ কর্মসূচি বন্ধ করার জন্য প্রশাসনের জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করছি।