ঈদের আগেই ওয়াকওয়ে খুলে দেয়া হোক : এমপি ছালাম

12

কালুরঘাট সেতুর চলমান সংস্কার কাজ ও জনসাধারণ পায়ে হেঁটে পারাপারের জন্য ওয়াকওয়ে খুলে দেওয়ার করণীয় নির্ধারণের জন্য বুধবার সকালে কালুরঘাট সেতুটি পরিদর্শন করেন চট্টগ্রাম-৮ আসনের এমপি আবদুচ ছালাম ও বাংলাদেশ রেলওয়ে, চট্টগ্রাম (পূর্ব) এর মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম।
সেতু পরিদর্শনকালে আরো উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ রেলওয়ে, চট্টগ্রাম (পূর্ব) এর প্রধান প্রকৌশলী আরমান হোসেন, অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী হামিদুর রহমান, ডিআরএম সাইফুল ইসলাম, সেতু প্রকৌশলী জিসান দত্ত, ডিইএন-১ মহিউদ্দিন মুকুল, ৫নং মোহরা ওয়ার্ড কাউন্সিলর কাজী নুরুল আমিন মামুন, আওয়ামী লীগ নেতা এস এম আনোয়ার মির্জা, মোহাম্মদ ফারুক, হাসান মুরাদ চৌধুরী, শহীদুল্লাহ কায়ছার, মো. হাসান, বোয়ালখালী আওয়ামীলীগ নেতা মামুনুর রশীদ মামুন, মোরশেদ আহমেদ খোকা, শহীদুল ইসলাম স¤্রাট, মোস্তফা কামাল প্রমুখ।
এসময় আবদুচ ছালাম এমপি বলেন, গত ঈদুল ফিতরে জনসাধারণের জন্য কালুরঘাট সেতুর ওয়াকওয়ে খুলে দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছিলাম বাস্তবায়ন সংস্থাকে। কিন্তু কাজ শেষ করতে না পারায় সেটা সম্ভব হয়নি। আসন্ন কোরবানীর ঈদে যাতে ওয়াকওয়ে খুলে দেয়া যায় সে লক্ষ্যে কাজ চলছে। সেতুটির ওয়াকওয়ে খুলে দিলে মানুষ পায়ে হেঁটে সেতুটি পারাপার হতে পারবে। তাছাড়া এসময় তিনি যত দ্রæত সম্ভব সেতুটির সংস্কার কাজ সুসম্পন্ন করে ঝুঁকিপূর্ণ ফেরী পারাপারের ধকল থেকে দু’পাড়ের জনসাধারণকে মুক্তি দিতে রেল বিভাগকে অনুরোধ জানান।
রেলওয়ে চট্টগ্রাম (পূর্ব) এর মহাব্যবস্থাপক মোহাম্মদ নাজমুল ইসলাম বলেন, কালুরঘাট সেতু যান চলাচলের উপযোগী করার জন্য দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে শ্রমিকরা। সেতু সংস্কার ছাড়া এই রেলপথে হাই লোডের ইঞ্জিনবাহী ট্রেন চালানো সম্ভব নয়। প্রায় ৫৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সেতুটি সংস্কার করা হচ্ছে। ৯৫ ভাগ কাজ শেষ। তবে সেতুর উপর এই কাজ সম্পন্ন হতে আরও এক থেকে দেড় মাস সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের প্রকৌশলীরা। বিজ্ঞপ্তি